ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিষয়ে A To Z বিস্তারিত যেগুলো জানা অবশ্যক পোষ্টটি অবশ্যই সবাই পড়বেন

টিউন বিভাগ অন্যান্য
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

আছ্ছালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই। আশা করি ভালোই আছেন। কিন্তু যারা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবেন তারা একটু চিন্তায় আছেন বিভিন্ন ভর্তি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে।
(টিউনিতে আমি A to Z বিস্তারিত আলোচনা করব, তাই পোষ্টটি একটু বড় হবে। সবাই একটু ধৈর্য নিয়ে পড়বেন। কারন এই বিষয়গুলি আপনার জানা ফরজ)
এটা আমার ২য় টপিক। তো আজকের টপিকে আমি A to Z বিস্তারিত বলব জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি সম্পর্কে। তো পোষ্টটি সবাই পড়বেন। আপনার বন্ধু, বা ভাতিজা, বা আশেপাশের কেও যদি এইবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রার্থী হয়ে থাকে তাহলে টিউনি তাদেরকে দিন। আর টিউনি ফেসবুকে শেয়ার দিতে পারেন। কারণ সঠিক সিদ্ধান্তের অভাবে আর এই অনলাইন ভর্তি সম্পর্কে জ্ঞান না থাকার কারনে আপনার বিশাল ক্ষতি হতে পারে। আমিও এবার ভর্তি হবো। সঠিক সিদ্ধান্তের অভাবে গত বছর ভর্তি হতে পারি নাই। তাই টিউনি লিখা। যদি একজনও উপকৃত হয়!
তো অনেক পেচাল পারছি। তো চলুন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক:↓

ADs by Techtunes ADs

অনলাইন আবেদন:★↓↓

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এ ভর্তির জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন করার আগে যে বিষয়গুলি খেয়াল রাখবেন তা হল। যেমন ধরুন আপনারা ৫ জন বন্ধু একসাথে পড়ালেখা করছেন। তো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে একই কলেজে একই সাবজেক্ট নিয়ে পড়তে চান। সবাই বশে সিদ্ধান্ত নিয়ে নিলেন। এবং সে অনুযায়য়ী আবেদন করলেন। এটা ভুল। এটা কখনই করবেন না। কারন হল আপনারা ৫ জন বন্ধু ধরুন নাটোর ns কলেজে অর্থনীতি সাবজেক্ট এ আবেদন করছেন। কিন্তুু আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে আপনার রেজাল্টের ওপর। কারন আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী আপনাকে সাবজেক্ট দেওয়া হবে। এখানে ssc+ hsc রেজাল্ট জোগ করে যেটা হবে তার ওপর ভিক্তি করে আপনাকে সাবজেক্ট দেওয়া হবে। আপনার রেজাল্ট খারাপ তাহলে কিন্তু আপনি এই অর্থনীতি সাবজেক্টটা পাবেন না। আমি সবকিছু বিস্তারিত বলছি। একটু ধৈর্য নিয়ে পড়ুন। সুতরাং nu. তে ভর্তির আবেদনের আগে আপনাকে কলেজ এবং সাবজেক্ট নির্বাচন করতে হবে। সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।
যেমন ধরুন আপনার রেজাল্ট ssc+hsc= 6.50 এখন আপনি ইংরেজী বিষয় নিয়ে রাজশাহী কলেজে পড়তে চান। এটা কিন্তু ভুল করবেন। কারন এই রেজাল্ট নিয়ে আপনি রাজশাহী কলেজে ইংরেজীতে কখনই চান্স পাবেন না (আমার জানা মনে)। কিন্তু এই রেজাল্ট নিয়ে আপনি যদি নাটোর ns কলেজে আবেদন করেন তাহলে কিন্তু আপনি ইংরেজী বিষয়টি পেয়ে যাবেন। এখন আপনি প্রশ্ন করতে পারেন কেন ভাই। উত্তরটা খুব সোজা। যেখানে চাপ বেশি সেখানে দাম বেশি। ধরুন একটা বড় রুই মাছ যদি আপনি গ্রামে বিক্রি করেন তাহলে সেটার দাম কম পাবেন। অথচ এই মাছটাই যদি আপনি শহরে বিক্রি করেন তাহলে দাম বেশি পাবেন। আশা করি বুঝতে পারছেন।
তো এখন যদি আপনি রাজশাহী কলেজেই পড়তে চান, তাহলে আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী সাবজেক্ট চয়েজ করতে হবে। আপনি ইংরেজীই পাবেন না। আবার যদি এমনটি করতে চান যে আমি ইংরেজীতেই পড়বেন সেটা নাটোর এই হোক আর রাজশাহীতেই হোক, । তাহলে আপনাকে রেজাল্ট অনুযায়ী যে কলেজ আপনাকে ইংরেজী সাবজেক্ট দিবে সে কলেজে আবেদন করুন। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। কারও সাথী ধরতে যাবেন। না। কারন আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী আপনি সাবজেক্ট পাবেন। তো সর্বপ্রথম আপনার রেজাল্ট + কলেজ + ৫ টি সাবজেক্ট চয়েজ করুন। যেগুলিতে আপনি পড়তে পারবেন। বা আপনার জন্য উপোযোগী।
তো সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর আপনার আশেপাশের কম্পিউটারের দোকানে যান। সেখানে, আপনার ssc and hsc এর রোল এবং রেজিস্টেশন নম্বর দিয়ে আবেদন শুরু করুন। এটা দেওয়ার পর আপনাকে কলেজ চয়েজ দিন এবার সেই কলেজে কোন কোন সাবজেক্ট আপনার জন্য উপযোগী সেগুলি দেখাবে এবার ৫ টি চয়েজ দিয়ে আপনার আবেদন সম্পূর্ণ করুন। তো খেয়াল রাখবেন যে আপনি ৫ টি সাবজেক্ট যে চয়েজ দিবেন তার মধ্যে প্রথম চয়েজটি বেশি অগ্রাধিকার পাবে। এখন আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী যদি প্রথম চয়েজ সাবজেক্ট না পান তাহলে ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫র্ম চয়েজ বিবেচনা করা হবে।
তো আবেদন শেষ হওয়ার পর আপনাকে একটি কাগজ দিবে। এই কাগজটি এখন আপনাকে যে কলেজে আপনি ভর্তির জন্য আবেদন করলেন, সেই কলেজে চলে যান। সেখানে গিয়ে আবেচন চূরান্ত ফর্ম + ssc+hsc এর রেজিস্টেশন ফটোকপি+ মার্কশিটের ফটোকপি এই(কলেজ অনুযায়ী অতিরিক্ত কাগজ লাগতে পারে, যেমন জন্ম নিবন্ধন। এটা কলেজে যোগাযোগ করে জেনে নিবেন) কাগজগুলি আপনাকে ২৫০ টাকা এবং উক্ত কাগজগুলি কলেজে জমা দিয়ে আসতে হবে। কলেজে গেলেই বুঝতে পারবেন। তো এই গেল আবেদন সম্পর্কিত আলোচনা। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর আবেদন চলবে ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর।
একটা বিষয় মনে রাখবেন কোনভাবেই কোন তারিখই মিস করা যাবে না। যদি করেন তাহলে এই বছরের মায়া আপনাকে ছাড়তে হবে। মানে আপনি কোনভাবে ভর্তি হতে পারবেন না।

রেজাল্ট:★↓↓

রেজাল্ট::- এবার আবেদনের পর রেজাল্ট দিবে। আপনি কোন সাবজেক্টটা তে চান্স পেয়েছেন কবে রেজাল্ট দিবে এ সব বিষয়ে খবর রাখতে আপনারা nu admiition wedsite এ চোখ রাখুন। ওয়েবসাইট লিংক-। →→ nu admiition website
তো আপনি আবেদন করার পর আপনাকে একটি id নম্বর আর password দিবে। সেটা দিয়ে ওয়েবসাইটে গিয়ে application login এ ক্লিক করে id আর password দিয়ে লগিন করলে notice বোর্ডে আপনার রেজাল্ট দেখা যাবে। রেজাল্টটা ৩ ধাপে সম্পূর্ণ হবে। যথা- ১ম মেরিট রেজাল্ট, ২য় মেরিট রেজাল্ট, রিলিজ স্লিপ রেজাল্ট। প্রথম মেরিট- প্রথম মেরিটে আপনি যদি চান্স পান তাহলে আবার কম্পিউটারের দোকানে গিয়ে চূরান্ত ফর্ম পূরন করে কলেজে গিয়ে দিক নির্দেশনা অনুযায়ী টাকা জমা দিয়ে ভর্তি হয়ে আসুন। এখন আপনি যদি প্রথম মেরিটে চান্স না পান, তাহলে ২য় মেরিট রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করুন। ২য় মেরিটে যদি চান্স পান তাহলে উপরোক্ত নিয়মে ফর্ম পূরন করে ভর্তি চূড়ান্ত করেজে গিয়ে টাকা + কাগজ জমা দিয়ে ভর্তি হয়ে আসুন।
রিলিজ স্লিপ- এখন আপনার মনে প্রশ্ন ১ মেরিট এবং ২য় মেরিট রেজাল্টে যদি আমি চান্স না পায় তাহলে কি করব। যেমন ধরুন আমার বন্ধুরা আমার সাথে একই কলেজে একই সাবজেক্ট এ পড়তে চেয়েছিলো, তো তাদের রেজাল্ট খারাপ এই কারনে তারা ১ ম মেরিট + ২য় মেরিট কোনটাতেই চান্স পাই নাই। কারন রেজাল্ট খারাপ কিন্তু চয়েজ দিছে ভালো সাবজেক্ট যেটা আপনার অনুপোযোগী। তাই আমি প্রথমেই বলেছি যে আবেদন করার আগে ভালোভাবে জেনে তারপর আবেদন করুন। তো আপনি যদি ১ম মেরিট এবং ২য় মেরিট রেজাল্ট কোনটাতেই চান্স না পান তাহলে কি করবেন? এখন আপনার জন্য শেষ উপায় রিলিজ স্লিপ। মানে আপনাকে পছন্দের কলেজও ছাড়তে হবে, আবার সাবজেক্টও ছাড়তে হবে। বোর্ড আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী যেখানে খুশি সেখানে আপনাকে admiition দিয়ে দিবে। রিলিজ স্লিপে আবেদন করার জন্য কম্পিউটারের দোকানে গিয়ে আপনার id আর password দিয়ে লগিন করে আবেদন করতে পারবেন। এখানে আপনাকে ৫ টি কলেজ চয়েজ দিতে হবে। কলেজ চয়েজ দেওয়ার পর সেই কলেজে যে যে সাবজেক্ট ফাঁকা আছে সেই সেই সাবজেক্ট চয়েজ দিতে পারবেন। তারপর আবেদন সম্পূর্ন হলে আপনাকে রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।
তো রেজাল্ট এর পর আপনি কোন না কোন কলেজএ আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী একটি সাবজেক্ট পেয়ে যাবেন।
তো চেষ্টা করবেন যে রিলিজ স্লিপ এ যেন আপনার আসা না লাগে। কারন বুঝতেই পারছেন এখানে আপনি মনের মত কলেজও পাবেন না, আবার বিষয়ও পাবেন না।
তাই আমি আবারও বলছি আবেদন করার আগে সিদ্ধান্ত নিন। যেমন আপনি রাজশাহী কলেজেই পড়বেন সাবজেক্ট যেটা সেটা হলেই হবে। তাহলে কলেজের কারও মাধ্যমে বা স্যারদের সাথে বা বড় ভাইদের সাথে যোগাযোগ করে জেনে নিন যে আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী কোন সাবজেক্টটি আপনি পাবেন। সেটা প্রথম চয়েজ দিয়ে আবেদন করুন। আবার ধরেন আপনি ইংরেজীতে পড়বেন কলেজ সেটা সেটা হলেই হবে। তাহলে আপনার রেজাল্ট অনুযায়ী কোন কলেজে আবেদন করলে আপনি বিষয়টি পেতে পারেন সেটা নিয়ে একটু জানতে হবে। তারপর আবেদন করতে হবে। আর যদি আপনার রেজাল্ট ভালো হয় তাহলেতো কোন কথাই নাই।
তবে এবার hsc এর রেজাল্টের অবস্থা খুব খারাপ। তাই ভালো করে ভেবে চিন্তে বড় ভাই বা আশেপাশের কারও সাহায্য নিয়ে সঠিক সিদ্ধান নিন।
সঠিক স্থানে ভর্তি হন।
তো ধন্যবাদ। আমার যতটুকু জানা ছির ততটুকু আমার ভাষায় বোঝাতে চেষ্টা করছি। আমি মানুষ। ভুলের উর্ধে নয়। ভুল ত্রুটি হলে মাফ করে দিবেন
আমার এই টিউনি লিখার প্রধান উদ্দেশ্য গত বছর আমি কারও কাছে সঠিক তথ্য পেয়েছিলাম না। সে অনেক কাহিনী। যাই হোক। যদি ভালো লাগে বন্ধু বানাতে পারেন। facebook এ ফ্রেন্ড রিকুয়েষ্ট পাঠাতে পারেন।
আর এ ছাড়াও ভর্তি সম্পর্কিত কোন বিষয় জানার জন্য আমাকে facebook এ যোগাযোগ করুন। তো ভালো থাকবেন সবাই।
আমার facebook id লিংক-

name- SR Riad

click here get my fb id

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি রিয়াদ আহমেদ। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 2 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 4 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস