ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

এক নজরে ভিভো ওয়াই ১১এসঃ সংক্ষিপ্ত স্পেসিফিকেশন

xমোবাইল ফোন নিয়ে কথা উঠলেই সবার আগে মাথায় আসে দামী ব্র্যান্ডগুলোর কথা। আবার, বাজেটের কথা মাথায় সেই ব্র্যান্ড গুলোর ভেতরেই খুঁজে বের করার চেষ্টা থাকে, তবে অনেক সময় কাংক্ষিত কোনো ফোন পাওয়া যায় না। তবে, ভালো ব্যাপার হচ্ছে এই কথা মাথায় নিয়ে দামী ব্র্যান্ডগুলো বাজারে নিয়ে এসেছে অনেক মধ্য বাজেটের ফোন। যেগুলো রীতিমতো চোখ ধাধানোর মতো।

ADs by Techtunes ADs

বিভিন্ন মোবাইল ব্র্যান্ড ডিজাইন দিয়েও ক্রেতাদের মন আকৃষ্ট করে। এরকমই একখানা ফোন লঞ্চ করেছে 'ভিভো'। এই মোবাইল ব্র্যান্ডটি সবার কাছে পরিচিত হয়েছে কিছু বছর হলো। কিন্তু, এই কিছু বছরগুলোর মধ্যে যে বিশ্বাস এবং অর্থ তারা ক্রেতাদের থেকে অর্জন করেছে তা বিস্ময়কর।

সম্প্রতি তাদের লঞ্চ করা একটি ফোনের মডেলটির নাম হচ্ছে 'ওয়াই ১১এস'। 'ভিভো' তাদের এই মডেলটি রিলিজ করেছে ২০২০ সালের, ২১ অক্টোবার তারিখে।

আজ এই ফোন নিয়েই হবে কিছু কথা। চলুন নিচে গিয়ে দেখে আসা যাক এর ব্যাপারে বিস্তারিতঃ

➡বডিঃ

'ভিভো' তাদের এই মডেলটির বডি ডিমেনশন দিয়েছে ১৬৪.৪×৭৬.৩×৮.৪ মি.মি. (৬.৪৭×৩.০০×০.৩৩ ইন)। এই ফোনের মোট ওজন হচ্ছে ১৯১ গ্রাম (৬.৭৪ ওজেড)। ফোনের ডিসপ্লেটি গরিলা গ্লাসের হলেও, এর পিছনে এবং ফ্রেমে দেয়া হয়েছে প্লাস্টিক। যেটার মান ভালোই ছিলো। এই ফোনে থাকছে ডুয়্যাল সিমের সুবিধা।

➡ডিসপ্লেঃ

'ভিভো' তাদের এই ফোনে দিয়েছে ৬.৫১ ইঞ্চির ডিসপ্লে। যেটার স্ক্রিন থেকে বডির রেশিও ৮১.৬% (১০২.৩ সে.মি.)। ডিসপ্লের স্ক্রিনটি আইপিএস এলসিডি'র। যেটার রেজুলেশন ৭২০×১৬০০ পিক্সেলের। এর রেশিও ২০ঃ৯ (২৭০ পিপিআই ডেনসিটি)।

➡প্লাটফর্মঃ

এই ফোনের প্লাটফর্মে রয়েছে 'ফানটাচ ১১' এর ভার্সন। যেটা অ্যান্ড্রয়েড ১০ এর। এই ফোনের প্রসেসর হচ্ছে 'কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন এসএম৪২৫০ ৪৬০ (১১ ন্যানোমিটার)। ফোনের সিপিইউ হচ্ছে অক্ট্যা কোর (৪×১.৮ জিএইচজেড কেআরওয়াইও ২৪০ & ৪×১.৬ জিএইচজেড কেআরওয়াইও ২৪০)। জিপিইউ তে থাকছে 'এদ্রেনো ৬১০'।

➡ক্যামেরাঃ

ব্যাকঃ এই ফোনের পিছনে রয়েছে মোট দুইটি ক্যামেরা। সেগুলো হচ্ছে ১৩ মেগাপিক্সেলের, এফ /২.২ ওয়াইড, পিডিএএফ সেন্সর এবং ২ মেগাঃ'র এফ/ ২.৪ এর ডেপথ সেন্সর। থাকছে এলইডি ফ্ল্যাশ এবং প্যানোরামা। এই ক্যামেরা দিয়ে রেকর্ড করা যাবে ১০৮০'পি+৩০ এফপিএস এর ভিডিও।
ফ্রন্টঃ এই ফোনের সামনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের এফ /১.৮ এর ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা। এটি দিয়েও ১০৮০'পি+৩০ এফপিএস এর ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

➡মেমোরীঃ

'ভিভো' তাদের এই ফোনটিকে বাজারে একটি ভ্যারিয়্যান্টেই ছেড়েছিলো। সেটা হচ্ছে ৩/৩২ জিবি ভ্যারিয়্যান্ট। এখানে আরেকটু বারতি ভ্যারিয়্যান্ট রাখা উচিত ছিলো 'ভিভো'র। মেমোরি কার্ড স্লটে ব্যবহার করা যাবে ২৫৬ জিবির উপরের মেমোরি কার্ড।

➡নেটওয়ার্কঃ

'ভিভো' তাদের এই ফোনটিতে আনেনি নেটওয়ার্কের কোনো পরিবর্তন। এর নেটওয়ার্ক এর ফিচার গুলো দেখা যাক। টেকনোলজিতে থাকছে জিএসএম / এইচএসপিএ/ এলটিই। ২জি ব্যান্ডস জিএসএম ৮৫০/ ৯০০/ ১৮০০/ ১৯০০ - সিম১ এবং সিম২। ৩জি ব্যান্ডস এইচএসডিপিএ ৮৫০/৯০০/১৭০০ (এডব্লিউএস)/১৯০০/­২১০০। ৪জি ব্যান্ডস ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৭, ৮, ২০, ২৮, ­৩৮, ৪০ এবং ৪১। এদের স্পিড 'এইচএস পি এ ৪২.২/৫.৭৬ এমবিপিএস, এলটিই-এ।

ADs by Techtunes ADs

➡সাউন্ডঃ

এই ফোনের সাউন্ড সেগমেন্ট ছিলো অসাধারন। যেকোনো ধরনের সাউন্ডট্র্যাক খুব সুন্দর ভাবেই শুনতে পাওয়া যাচ্ছিলো এর স্পিকারে। থাকছে ৩.৫ মি.মি.'র ইয়ারফোন জ্যাক।

➡ব্যাটারীঃ

এই ফোনে থাকছে ৫০০০ এমএইচের ব্যাটারী যেটা নন রিমুভেবল। এই ফোনের সাথে আরও পেয়ে যাচ্ছেন ১০ ওয়াটের একটি ফাস্ট চার্জার। যেটা ফোনের ব্যাটারী দ্রুত চার্জ করবে।

➡ফিচারঃ

এর বিশেষ ফিচারে থাকছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট। যেটা ফোনের পাওয়ার বাটনে দেয়া হয়েছে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি এক্সেলেরোমিটার, প্রক্সিমিটি এবং কম্প্যাস যুক্ত। ফোনের মেসেজিং ফিচারে থাকছে এসএমএস (থ্রেডেড ভিউ), এমএমএস, ই-মেইল, পুশ ই-মেইল এবং আইএম। ব্রাউজারে থাকছে এইচটিএমএল৫।

যেসব পরিবর্তন রয়েছে এই ফোনেঃ
ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি হচ্ছে এই ফোনের একমাত্র পরিবর্তন। এছাড়া অন্য কোনো জিনিসের পরিবর্তন 'ভিভো' তাদের এই ফোনে করেনি।

➡দামঃ

বর্তমানে এই ফোনটির ৩/৩২ জিবি ভ্যারিয়্যান্টের দাম মাত্র ১৩, ০০০ টাকা।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি মোঃ ইউসুফ আলী। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 9 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

প্রিয় টিউনার,

আপনার টিউনটি ‘ট্রাসটেড টিউন’ হিসেবে বিবেচিত হলো না।

কারণ:

টেকটিউনস ‘ট্রাসটেড টিউন’ হিসেবে শুধুমাত্র স্পেসিফিকেশন ভিত্তিক ফোন রিভিউ ও গ্যাজেট রিভিউ টেকটিউনস ‘ট্রাসটেড টিউন’ হিসেবে বিবেচিত হয় না। টেকটিউনস ট্রাসটেড টিউনার হিসেবে আপনার ফোন রিভিউ ও গ্যাজেট রিভিউ ফরমেট অবশ্যই এই টিউনের মত হতে হয়।

করনীয়:

টেকটিউনস ট্রাসটেড টিউনার হিসেবে আপনার ফোন রিভিউ ও গ্যাজেট রিভিউ করতে রিভিউ ফরমেট অবশ্যই এই টিউনের মত করুন

আপনার পরবর্তী টিউনে নির্দেশিত এই গাইডলাইন মেনে টিউন করুন।