▒▒██▒▒ ব্রেইল-দৃষ্টিহীনদের সহায়ক এক পদ্ধতি ▒▒██▒▒

ছোটবেলায় টিভিতে দেখতাম অন্ধ লোকজন বই এর উপর হাত রেখে পড়ছে।বইটি দেখা যাচ্ছে সাদা তবে তাতে কিছু ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্র দেখা যাচ্ছে।আবার লেখার সময় সুঁই এর মতো কিছু একটা নিয়ে খাতায় ছিদ্র করে লিখছে। খুবেই অবাক হলাম তাদের পড়ালেখার এই পদ্ধতি দেখে।পরে একজনকে জিজ্ঞেস করে জানলাম এটার নাম ব্রেইল পদ্ধতি। ব্রেইল হচ্ছে এমন একটা পদ্ধতি যার সাহায্যে দৃষ্টিহীনরা স্পর্শের মাধ্যমে লিখতে এবং পড়তে পারে।ফ্রেঞ্চ লুইস ব্রেইল (Louis Braille) নামে একজন অন্ধব্যাক্তি ১৮২৯ খ্রিষ্টাব্দে দৃষ্টিহীনদের পড়ালেখার এই পদ্ধতি আবিষ্কার করেন যা পরবর্তীতে চার্লস বার্বিয়ার নামে ফ্রেঞ্চ আর্মির একজন ক্যাপ্টেন মানোন্নয়ন করেন।

ব্রেইল পদ্ধতিতে একটি চতুর্ভুজ আকৃতির বক্স এ ছয়টি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ছিদ্র থাকবে ৩ x২ কলামে।অর্থাৎ নিচের দিকে তিনটি এবং পাশাপাশি ২ টি।প্রতিটি ছিদ্র এক একটি বর্ণমালা,সংখ্যা নির্দেশ করবে। এই ছয়টি খালি ছিদ্রের মধ্যে একটু উঁচু বা পুর্ণ যেগুলো থাকবে সেগুলোই হচ্ছে বর্নমালা বা সংখ্যা চেনার নির্দেশক।কি বুঝতে একটু কষ্ট হচ্ছে??? নিচের ছবিটি দেখলে বুঝে যাবেন আশাকরি।

যেমন,টেকটিউনস (Techtunes) ব্রেইল পদ্ধতিতে লিখলে তা দেখতে হবে নিচের চিত্রের মতো।

Techtunes

এই পদ্ধতির মোট তিনটি ভার্সন বা শ্রেনীবিভাগ আছে ।সেগুলো হলঃ

গ্রেড ১: এটি মুলত যারা নতুন করে ব্রেইল পদ্ধতিতে পড়া শিখতে চায় তাদের জন্য।এই গ্রেডে সাধারণত ২৬ টি বর্নমালা এবং  কিছু চিহ্ন শেখানো হয়।

গ্রেড ২: এই গ্রেডে বর্নমালা শেখানোর পাশাপাশি পাবলিক প্লেসে ব্যবহার করা বিভিন্ন চিহ্ন,ব্রেইলে করা বই পড়া ,ব্রেইল করার জন্য বিভিন্ন জিনিসপত্রের সাথে পরিচয় এবং তা ব্যবহার করার নিয়ম শেখানো হয়।

গ্রেড ৩: ব্রেইলের বর্ণমালা এবং পড়ার সাথে যারা মোটামুটি ভালভাবে পরিচিত হয় তাদের এই গ্রেডে বিভিন্ন ছোটখাটো লেখা কিভাবে লিখতে হয় সেটি শেখানো হয়।

বর্তমানে বিশ্বে বিভিন্ন দেশের মাতৃভাষা উপযোগী করে এই পদ্ধতির ব্যবহার হচ্ছে দৃষ্টিহীনদের শিক্ষা প্রদানে।এই পদ্ধতি আশীর্বাদ হয়ে এসেছে তাদের কাছে।অনেক দেশেই ব্রেইল পদ্ধতি ব্যবহার করে অন্ধ ব্যাক্তিরা বিভিন্ন স্কুল-কলেজ,ইউনিভার্সিটিতে পড়ালেখা করছে।বাংলাদেশেও ব্রেইল পদ্ধতিতে শিক্ষাদান চালু হয়েছে।এছাড়াও ব্রেইল পদ্ধতিতে করা কিবোর্ড,মোবাইল ও অন্যান্য ইলেক্ট্রনিকস পন্য বাজারে পাওয়া যায়।

রেইল পদ্ধতিতে অক্ষর বা সংখ্যা চেনার আর কিছু নিয়ম নিচে দেখুন।

All human beings are born free and equal in dignity and rights. They are endowed with reason and conscience and should act towards one another in a spirit of brotherhood.

যেমন, উপরের এই আর্টিকেলটি ব্রেইল পদ্ধতিতে লিখলে তা দেখা যাবে নিচের চিত্রের মতো...

আপনি যদি কোন লেখা ব্রেইল পদ্ধতিতে কনভার্ট করে দেখতে চান তাহলে এই সাইট ব্যবহার করে তা কনভার্ট করে দেখতে পারেন।

Level 0

আমি নিশাচর নাইম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 47 টি টিউন ও 1183 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

তেমন কিছু জানি না, কিছু জানলে তা অন্যদের শিখানোর চেষ্টা করি যতটুকু সম্ভব।জ্ঞান নিজের মাঝে সীমাবদ্ধ না রেখে সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়াই প্রকৃত সার্থকতা।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

সময়ের অভাবে তাড়াহুড়ো করে লিখেছি তাই লেখাটা ভালো হয়নি।ইনশাআল্লাহ্‌ সামনে সময় নিয়ে লিখার চেষ্টা করব।

শেয়ার করার জন্য…….ধন্যবাদ

Khub valo laglo.Anek kichhu jante parlam.
Thank you.

tnx it is very interesting

    আপনার কমেন্ট দেখলে খুবেই খারাপ লাগে।সবাই পারুক না পারুক চেষ্টা করে বাংলায় কমেন্ট করতে কিন্তু আপনি এখনো ইংরেজিতে কমেন্ট করেন।বাংলায় কমেন্ট করার চেষ্টা করুন।নিচে বাংলায় লেখার জন্য ৩টি লেয়াউট আছে।এরপর সমস্যা হলে অভ্র কিবোর্ড দিয়ে চেষ্টা করুন।আমরা এগিয়ে না আসলে কে আসবে বাংলাকে এগিয়ে নিতে??যত বেশি বাংলায় লেখা হবে তত বেশি তা রিচ হবে।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ 🙂

নাইমভাইইই খুব সুন্দর টিউন করেছেন। এখন আমি অন্ধ হলেও সমস্যা নাই।

very good ……

বাহ! অনেক জানার মত টিউন। তবে আশা করি যে এটা যাদের দরকার তাদেরই ভালোমতো কাজে লাগুক। বুঝেন তো ব্যাপারটা 😳

Level 0

So Nice Tune. Thank U….